সাহিত্য

সুবোধ তুই পালিয়ে যা………

আমাদের নতুন বইয়ের মলাটে যখন গোটা গোটা অক্ষরে নিজের নাম লিখে রাখাটা আর ফ্যাশনেবল মনে হচ্ছিলোনা, সেই সময়ে আমাদের সাথে সুবোধের পরিচয়। ক্লাস নাইনে শয়তান কাঁধের দুই ফেরেশতাকে সরিয়ে দিয়ে জাঁকিয়ে বসে, ক্রমশ দূর্বাদাড়ি অবিন্যাস্ত হওয়া শুরু করে, আমরা সাবালোক হওয়ার বাসনায় শয়তানের সাথে ফ্যান্টাসি বিষয়ক দরদাম…………………

বৃহন্নলা ও আমাদের বিশ্বাস

আপনারা যারা রোকেয়া স্মরনি দিয়ে যাওয়া আসা করেন হয়ত খেয়াল করেছেন কয়েকজন হিজড়া ওখানে পথচারীদের থেকে টাকা উঠায়। গাড়ি, সিএনজি আটোরিক্সা, বাস ট্রাফিক সিগনালে থামলে এসে হাত পাতে। এই হিজড়াদের মধ্যে একজন আছে, মাথায় হিজাব পরে। খেয়াল করেছেন………….

আলেক শাইয়ের তিনকাল

বাজীকর ও বাজীকর

তোমার বাজীর খেলায় হারবো না তো আর।

বাজিকর ও বাজিকর।

আমি ভালবেসে জল ফুড়েছি

মাটি ফুড়ে পারাপার।

বাজিকর ও………………………

ভালবাসার তত্ত্ব

দেহ সর্বস্ব ভালবাসায় কোন ভালবাসার সৃষ্টি নেই। এটিকে ঠিক ভালবাসা বলা যায় না। এটিকে যন্ত্রের সাথে তুলনা করা যেতে পারে যার মধ্যে সুক্ষ কোন আবেগ অনুভূতির চিহ্ন থাকে না। এটি শুধু জৈবিক তাড়নার উপর নির্ভর করে দুটি মানব মানবীকে কাছে নেয়। তাই এটি অন্যান্য প্রাণীর মত শুধু যৌন সম্পর্ক ছাড়া আর কিছুই নয়। শুধু শারীরিক চাহিদার উপর ভিত্তি করে যে সম্পর্কগুলো তৈরি হয় তাতে ভালবাসার বন্ধন থাকে না। তাই দুদিন পরেই শুরু হয় এক ঘেয়েমি। অনেক সময় লোক চক্ষুর ভয়ে বিচ্ছিন্ন না……।

সবলের চৌহদ্দি

রাজপুত্র বা রাজা হবার স্বপ্ন তার মাথায় আসতো না, ভুলেও আসতো না। সকাল বিকেল গোলপাতার ছাপড়ায় বসে ছোট ছোট ছাত্র পড়িয়ে খিদে পেটে, মুখে পচা দুর্গন্ধ নিয়ে বাড়ি ফিরে কিছু একটা খেয়ে নেয়া আর তারপরে আরও কিছু ঘর-গেরস্থলির কাজ করা, এই ছিল তার প্রতিদিনের রঙচটা স্বপ্ন। সারাটা জীবনের জন্যে সে ঐ টুটাফাটা বেসরকারি প্রাইমারীর সাথে বাঁধা থেকে গেলো। সেই বাঁধন সে কোনকালে কাটাতে পারেনি, কাটাতে চায়ওনি। সুযোগ পেলেই সে মানুষের মনুষ্যত্বের কথা………

নারীবাদ ও স্বাধীনতা

আজ সারাদিন মেয়ের কেনাকাটার জন্য বাইরে ছিলাম। এই টরোন্টোতে ইয়ার্কডেল নামে একটা বড় শপিং সেন্টার রয়েছে। সেখানে গেলেই চোখে পড়ে বড় বড় ব্রান্ডের সব দোকান। ফ্যাশান সচেতন মেয়ের জন্য আমার সেখানে যাওয়া হয়। ছুটির দিনে এখানকার যুবক যুবতীদের তীব্র ভিড় দেখা যায় সেখানে তবে মেয়েদের সংখ্যাই বেশি। এখানকার ইয়াং জেনারেশন খুব ফ্যাশান সচেতন। ছেলেদের থেকে মেয়েরাই সবচেয়ে বেশি ডলার খরচ করে এই সব ফ্যাশানের পিছনে। মেয়েদের এই চাহিদার সাথে সাথে এখানে গড়ে উঠেছে বড় বড় ডিজাইনারদের স্টোর যা ব্রান্ড নামেই পরিচিত। এমন কি এখানে………..

চক্ষুলজ্জা

লজ্জা দুই রকমের। এক হলো- গুপ্ত অঙ্গ ঢাকা না-ঢাকা বিষয়ক লজ্জা, আরেক হলো লোকলজ্জা বা চক্ষুলজ্জা। গুপ্ত অঙ্গ ঢাকার অভ্যাস মানুষ পেয়েছে সুদীর্ঘ বিবর্তনীয় পথ ধরে। একজন বিবর্তনবিদ এই বিষয়ে ভাল বলতে পারবেন। তবে অভ্যাসটা ভালই, কারণ এর ফলে মানুষের যৌন জীবনে একটা শৃঙ্খলা এসেছে। মানুষ এর ফলে নিজেকে অন্ততঃ সভ্য বলতে পারার মতন যোগ্যতা অর্জন করেছে। লজ্জা নিবারণের এই অভ্যাস মানুষের সমাজে বেশ শক্তভাবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। এটা কারও পক্ষে……

 

book

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s